বিড়ালের নয়টি চমৎকার বিশ্ব রেকর্ড যা আপনার অজানা

বিড়াল দেখে নাই এমন লোক খুজে পাওয়া যাবে না। আর বিড়াল সম্পর্কে আমরা হয়তো অনেক কিছুই জানি। যারা বিড়াল পোষেন কিংবা বিড়াল ভালোবাসেন তাদের কাছে তাদের বিড়ালটাই সবছেয়ে আকর্ষনীয় এবং সুন্দর বিড়াল। যার ফলে হয়তো অনেকেই অন্য বিড়ালের খবর রাখি না। অথচ এই বিড়ালের দখলে রয়েছে সাতটি বিশ্ব রেকর্ড যা হয়তো আপনার অজানা। আজকের এই পোষ্টে বিড়ালের দখলে থাকা সেই সাতটি বিশ্ব রেকর্ড সম্পর্কে আলোচনার চেষ্টা করবো।

গৃহপালিত বিড়ালের নয়টি বিশ্ব রেকর্ড


বিড়ালের যতো বিশ্ব রেকর্ড
বিড়ালের যতো বিশ্ব রেকর্ড

০১. সবছেয়ে বেশী বছর বেঁচে থাকা বিড়ালঃ

গৃহপালিত বিড়ালগুলোর গড় আয়ু সাধারনত ৮-১৬ বছর হয়ে থাকে। যদিও গড় আয়ু অনেক অনেক গুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করে। তবে গড় হিসেব করলে তা আট থেকে ষোল বছর হিসেবেই ধরা হয়। এর মাঝে  Siamese জাতের বিড়ালগুলোর গড় আয়ু সবছেয়ে বেশী। ‍Siamese জাতের বিড়ালগুলোর গড় আয়ু ১৮-২০ বছর হয়ে থাকে। তবে পৃৃথিবীর সবছেয়ে বেশী বছর বেঁচে থাকা বিড়ালের রেকর্ড কিন্তু Siamese জাতের বিড়ালের দখলে নেই।

তবে গিনেস বুকে রেকর্ড করা সবছেয়ে বেশী বছর বেঁচে থাকা বিড়ালের নাম Creme Puff (ক্রিম পাফ)। টেক্সাসের জ্যাক পেরি নামক এক ভদ্রলোক এই বিড়ালের মালিক ছিলো। এর জন্ম হয়েছে ০৩ আগস্ট ১৯৬৭ সালে এবং মৃত্যু হয়েছে ০৬ আগস্ট ২০০৫ সালে। অর্থ্যাৎ সবেছেয়ে বেশী বয়স পর্যন্ত বেঁচে থাকা বিড়ালের আয়ু ছিলো ৩৮ বছর ০৩ দিন। এই লম্বা বয়স নিয়ে  Creme Puff (ক্রিম পাফ) গিনেস বুকে রেকর্ড করা সবছেয়ে বেশী বয়স্ক বিড়ালের স্থান দখল করে রেখেছে।

এর আগে সবছেয়ে বয়স্ক বিড়ালের যে রেকর্ড ছিলো গিনেস বুকে সেই বিড়ালের বয়স ছিলো ৩৪ বছর ০২ মাস। এর মালিকও ছিলো সেই জ্যাক পেরি।

সম্প্রতি কালে সবছেয়ে বেশী বছর বেঁচে থাকার রেকর্ড গড়ার পথে ছিলো Maine Coon (মেইন কুন) জাতের একটি বিড়াল। ইংল্যান্ডের Michele Heritage নামক একজন মহিলা তার ২০তম জন্মদিনে একটি মেইন কুন বিড়ালের ছানা উপহার হিসেবে পান। দূর্ভাগ্যবশত Michele Heritage এর ৫২ বছর বয়সে গত বছর সেই বিড়ালটি মারা যায়। সেই হিসেবে মৃত্যুর পূর্বে রুবেলের বয়স হয়েছে ৩১ বছর। 

০২. সবছেয়ে লম্বা পশমের বিড়ালঃ

ক্যালিফোর্নিয়ার Jami Smith নামক ব্যাক্তির বিড়াল সবছেয়ে লম্বা পশমের রেকর্ড গড়েছে।Sophie Smith নামের এই বিড়াল তার দুই বছর বয়সে ২০১৩ সালের ০৯ নভেম্বরে এই রেকর্ডের মালিক হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে। এই সময় এর লেজের পশমের দৈর্ঘ্য ছিলো ২৫.৬৮ সেন্টিমিটার অর্থাৎ ১০.১১ ইঞ্চি। গিনেস বুকের রেকর্ড ২০১৪ সালের আপডেটে Sophia Smith এর নাম উঠে আসে। 

এর আগে গিনেস বুকে এই রেকর্ডের মালিক ছিলো Colonel Meow নামের আরেকটি বিড়ালের। মাত্র এক ইঞ্চির জন্য Colonel Meow বিড়ালটি Sophia Smith এর কাছে রেকর্ড হাতছাড়া করে। যদিও এই বিড়ালটি মাত্র দুই বছর বয়সে মারা যায়। বেঁচে থাকলে হয়তো তার গড়া রেকর্ড তার হাতেই থাকতো। 

০৩. পৃথিবীর সবছেয়ে ছোট বিড়ালঃ

আপনার দেখা সবছেয়ে ছোট বিড়ালের আকার কতোটুকু হবে? সচারচর আমাদের উপমহাদেশে যেসব স্থানীয় বিড়াল দেখি সেই হিসেবে হয়তো আপনি এতোক্ষনে একটি ধারনা নিয়ে ফেলেছেন সবছেয়ে ছোট বিড়ালের। আপনার ধারনাকেও হার মানিয়ে যাবে যখন আপনি পৃথিবীর সবছেয়ে ছোট আকারের বিড়ালের সাইজ জানবেন।

Tinker toy নামক হিমালয়ান ও পার্সিয়ান ক্রস মিশ্রিত পুরুষ বিড়ালটি পৃথিবীর সবছেয়ে ছোট আকারের বিড়ালের রেকর্ড করে ফেলেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Katrina and Scott Forbes ছিলেন এই বিড়ালটির মালিক। Tinker toy বিড়ালটির জন্ম হয়েছিলো ২৫ ডিসেম্বর ১৯৯০ সালে এবং নভেম্বর ১৯৯৭ সালে মাত্র ছয় বছর বয়সে এটি মারা যায়।

উচ্ছতার দিকে থেকে এই বিড়ালটি ছিলো মাত্র ০৭ (সাত) সেন্টিমিটার অর্থ্যাৎ মাত্র ২.৭৫ ইঞ্চি এবং লম্বায় ছিলো মাত্র ১৯ সেন্টিমিটার অর্থ্যাৎ মাত্র ৭.৫ (সাড়ে সাত) ইঞ্চি। চাইলেই আপনি একে পকেটে নিয়ে ঘুরতে পারবেন। এই বিড়াল কি ইঁদুর মারবে বরং এটি আকারে অনেক ইঁদুরের ছেয়েও ছোট ছিল।

বন্যবিড়ালদের মাঝে Rusty-Spotted Cat জাতটি পৃথিবীর সবছেয়ে ছোট বিড়ালের রেকর্ডধারী। এদের ওজন মাত্র এক থেকে  দেড় কেজি। লেজ বাদে এই বিড়ালগুলো লম্বায় ১৪-১৯ ইঞ্চি হয়ে থাকে। 

০৪. পৃথিবীর সবছেয়ে লম্বা বিড়ালঃ

পৃথিবীর সবছেয়ে লম্বা জীবিত বিড়ালের রেকর্ড ব্যারিভেল নামক একটি মেইন কুন বিড়ালের দখলে। ইতালিয়ান Cinzia Tinnirello and Edgar Scandurra এই লম্বা বিড়ালটির মালিক। এই বিড়ালটি লম্বায় ১২০ সেন্টিমিটার অর্থাৎ ৩ ফুট ১১ ইঞ্চি। ২২ মে ২০১৮ ইং তারিখে এটিকে বর্তমান পৃথিবীর সবছেয়ে লম্বা বিড়াল হিসেব স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। মাত্র দুই বছর বয়সের এই বিড়ালটি এখন সবছেয়ে লম্বা বিড়ালের রেকর্ডের মালিক। যা এখনো জীবিত আছে। দৈত্যাকার আকারের হলেও এই বিড়ালটি কিন্তু স্বভাবের দিক থেকে অনেক শান্ত ও ভদ্র এবং পছন্দের খাবার টুনা মাছ।

এর আগে এই রেকর্ডটির মালিক ছিলো মেইন কুন জাতের আরেকটি বিড়াল যার নাম Ludo. এটি কেলসি গিল নামক এক ব্যাক্তির মালিকানাধীন। Ludo নামের  এই বিড়ালটি লম্বায় ছিলো ১১৮.৩৩ সেন্টিমিটার অর্থ্যাৎ ৩ ফুট ১০.৫৯ ইঞ্চি।

তবে বিশ্বের সবছেয়ে লম্বা বিড়ালের রেকর্ডের মালিক Stewie নামক একটি মেইন কুুন বিড়াল। এর মালিক ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের Robin Hendrickson and Erik Brandsness. এই বিড়ালটি লম্বায় ছিলো ১২৩ সেন্টমিটার অর্থ্যাৎ সাড়ে চারফুট লম্বা। যদিও এই বিড়ালটি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০১৩ সালে মারা যায়। পৃথিবীর সবছেয়ে লম্বা বিড়ালের রেকর্ড এখনো তার দখলে।

০৫. সবছেয়ে লম্বা লেজের রেকর্ডঃ

বুবটেইল বিড়ালগুলো ছাড়া অন্য সব বিড়ালেরই লেজ আছে। জাতভেদে এই লেজের আকারের কিছুটা পরিবর্তন হয়। কারো একটু বেশী কারো কম। তবে এভারেজ হিসেব করলে গৃহপালিত বিড়ালের লেজের আকার সাধারনত ৩০ সেন্টিমিটার। তবে পৃথিবীর সবছেয়ে বড় লেজের রেকর্ড গড়েছে মেইনকুন জাতের একটি বিড়াল। Cygnus নামক এই মেইন কুন জাতের বিড়ালের লেজের দৈর্ঘ্য ৪৪.৬৬ সেন্টিমিটার অর্থ্যাৎ ১৭.৩৮ ইঞ্চি। 

প্রায় দেড় ফুট লম্বা লেজ নিয়ে Cygnus গিনেজ বুকে নিজের নাম তুলেছে যা এখনো কেউ ভাঙ্গতে পারে নাই।

০৬. সবছেয়ে বেশী বাচ্ছার জন্ম দেওয়া বিড়ালঃ

একটি বিড়াল এক সাথে কতোগুলো বাচ্চা জন্ম দিতে পারে? 

সচারচর আমাদের উপমহাদেশের একটি মা বিড়াল একসাথে দুই বা তিনটি বাচ্চার জন্ম দেয়। তবে কখনো কখনো এই সংখ্যা ১১ পর্যন্ত হতে পারে। একটি মা বিড়াল যদি ১২-১৫ বছর বেঁচে থাকে তাহলে পুরো জীবনে হয়তো সে মা বিড়ালটি সর্বোচ্ছ ১৮০টি বাচ্চা জন্ম দিতে পারবে। 

এইটা গড় হিসেব কেউ আরো কম বা বেশী বাচ্চা জন্মদিতে পারে। বেশীর সংখ্যা কতো হলে তা রেকর্ড হতে পারে তা কি ধারনা করতে পারেন?

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে ডাস্টি (Dusty) নামে একটি টাবি (tabby) বিড়াল ১৯৩৫ সালে জন্মগ্রহণ করে এবং সর্বশেষ বাচ্চা প্রসব করে ১২ জুন ১৯৫২ সালে। ১৯৩৫ থেকে ১৯৫২ পর্যন্ত ১৬ বছরে Dusty নামের এই tabby বিড়ালটি বাচ্চা প্রসব করেছে ৪২০টি। সর্বশেষ প্রসবে সে মাত্র একটি বাচ্চা প্রসব করেছে না হলে হয়তো এই সংখ্যাটি আরেকটু বেশী হতে পারতো। যাই হোক ডাস্টি বিড়ালটি ৪২০টি বাচ্চা জন্মদিয়ে গিনেস বুকে সবছেয়ে বেশী সংখ্যক বাচ্ছা জন্মদানের রেকর্ড  করেছে।

 ০৭. উচ্চতা অনুযায়ী সবছেয়ে বড় বিড়ালঃ

সবছেয়ে বড় বিড়ালের তালিকা করলে সবার উপরের দিকে থাকবে সাভানাহ জাতের বিড়ালগুলোর নাম। সাভানাহ জাতের বিড়ালগুলো মূলত বন্য সার্ভাল বিড়ালের ক্রস ব্রিডের ফলেই জন্ম হয়। বন্য সার্ভাল বিড়ালগুলো এমনিতেই দেখতে অনেকটা চিতাবঘের মতো এবং এদের উচ্চতা গৃহপালিত সব বিড়াল থেকে বেশী। আর এদের ক্রসব্রিডে জন্ম নেওয়া সাভানাহ বিড়ালগুলোও তাই আকারে বড় হয়ে থাকে।

সবছেয়ে বেশী উচ্চতা সম্পন্ন বিড়ালের রেকর্ড সাভানাহ জাতের একটি বিড়ালের দখলে রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের আর্কটুরাস আলডেবারান পাওয়ারস (Arcturus Aldebaran Powers) নামের এই সাভানাহ বিড়ালটি তার উচ্চতার জন্য গিনেসবুকে নাম তুলে ফেলেছে। এর উচ্চতা ছিলো ৪৮.৪ ইঞ্চি অর্থ্যাৎ ১৯.০৫  ইঞ্চি। আর ওজন ছিলো ১৩ কেজি। 

০৮. এক লাফে সর্বোচছ দূরত্ব অতিক্রম করা বিড়ালঃ

বিভিন্ন সময়ে আমরা বিড়ালকে লাফালাফি করতে দেখি। আর এই লাফালাফি করার জন্য Balinese (বালিনেসি) জাতের বিড়ালগুলো বিখ্যাত। এই বিড়ালগুলো ঘরের আলমিরার উপর থেকে, জানালার কার্নিশ থেকে কিংবা Cat Tree থেকে লাফালাফি করতে দেখা যায়। 

একটি বিড়াল এক লাফে কতো দূর যেতে পারে?

একটি বিড়াল এক লাফে কতো দূর যেতে পারে তা নিয়েও একটা বিশ্ব রেকর্ড হয়ে গেছে।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস রাজ্যের বাসিন্দা সামান্থা মার্টিন একটি রেসকিউ বিড়াল ছানা এনেছেন। এই বিড়াল ছানাটির নাম দিয়েছেন  Alley (এলেই)। Alley ছোট বেলা থেকেই লাফালাফি করতে পছন্দ করতো। তার লাফালাফি দেখে মার্টিন তাকে নিয়মিত ট্রেনিং দেওয়া শুরু করেছেন। আর এর ফলেই Alley গিনেস বুকে নিজের ও তার মালিকের নাম তুলে ফেলেছে।

Alley (এলেই) এক লাফে সর্বোচ্চ দূরত্ব অতিক্রম করা বিড়ালের রেকর্ডের মালিক। Alley এক লাফে ১৮২.৮৮ সেন্টিমিটার মানে ০৬ (ছয়) ফুট দূরত্ব অতিক্রম করেছে। বিড়াল এক লাফে ছয় ফুট দূরত্ব অতিক্রম করেছে যা এখন পর্যন্ত রেকর্ড। দেখা যাক সামনের দিনে কে এই রেকর্ড ভাঙ্গতে পারে। 

Alley এর এই রেকর্ডে তার মালিক সামান্থা মার্টিন অনেক খুশি হয়েছেন। কারন সে নিজেও স্টার হয়েছে সাতে মালিকের নামকেও গিনেজ বুকে তুলেছে।


০৯. পৃথিবীর সবছেয়ে স্মার্ট বিড়ালঃ

প্রত্যেকের কাছে তার পোষা বিড়ালটাই সবছেয়ে স্মার্ট। নিজের কাছে স্মার্ট হলে তো আর গিনেজ বুকে নাম উঠানো যাবে না। গিনেজ বুকে নাম উঠালে হতে তো এক্সট্রা কিছু হতে হবে। সেই এক্সট্রা কিছু দিয়েই Alexis নামের বিড়ালটি গিনেজ বুকে নাম তুলেছে। 

অস্ট্রিয়ার বাসিন্দা আনিকা মর্টেজ (Anika Mortiz) তার বিড়াল ছানাকে ১২ সপ্তাহ বয়স থেকেই বিভিন্ন ধরনের কলা কৌশলের প্রশিক্ষন দেওয়া শুরু করেছে। Alexis তার আট বছর বয়সে এসে সবছেয়ে স্মার্ট বিড়ালের রেকর্ড করেছে।

Alexis এক মিনিট সময়ের মাঝে ২৬ কৌশল দেখিয়ে সবছেয়ে স্মার্ট বিড়ালের রেকর্ড করেছে। Alexis এর এক মিনিটের কলাকৌশলের ভিডিও দেখতে এইখানে ক্লিক করুন। 

এর আগে ডিডগা (Didga) নামের একটি বিড়াল এই রেকর্ডের মালিক ছিলো। ডিডগা এক মিনিটে ২৪টা কৌশল দেখিয়ে ২০২০ পর্যন্ত সেরা স্মার্ট বিড়ালের রেকর্ডের মালিক ছিলো। ২০২১ সালে এক মিনিটে ২৬টা কৌশল দেখিয়ে  Alexis  সেরা স্মার্ট বিড়ালের রেকর্ড গড়েছে।

উপসংহারঃ

উপরের তালিকার কোন রেকর্ডটি আপনার কাছে বেশী আকর্ষনীয় মনে হয়েছে তা কমেন্টস করে জানাতে পারেন। এছাড়াও যদি কোন ভুল তথ্য দিয়ে থাকে তা জানালে কৃতজ্ঞ থাকবো। আর এই রেকর্ডধারী বিড়ালগুলোর ছবি দিতে পারি নি কপিরাইট সমস্যার কারনে। আপনার ইচ্ছে করলে গুগলো বা ইউটিউবে সার্চ করে এদের ছবিগুলো দেখতে পারবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Post a Comment

How is this Article? Please say your opinion in comment box.

নবীনতর পূর্বতন